সোশ্যাল মিডিয়া প্রচার সম্মন্ধে আমরা অধিকাংশই তেমন জানিনা। অধিকাংশই এর নাম শুনে থাকবেন। কিন্তু সোশাল মিডিয়া প্রচার নিয়ে কাজ করতে চাইলে এই সম্পর্কে ফুলফিল আন্দাজ নিয়ে তবেই শুরু করা উচিত। আজকের এই পোস্ট হতে ধারণা দেয়া হবে সোশাল মিডিয়া প্রচার নিয়ে এবং জেনে নিতে পারবেন কীভাবে আপনি এই বিষয়টি শিখতে পারবেন।

অনলাইন আয়ের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম অধুনা সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং। মূলত পণ্য বা সেবার প্রচারনা নানারকম সামাজিক মিডিয়া উদাহরণসরূপ ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, টুইটার ইত্যাদির মাধ্যমে করাকেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলা হয়। শুনতে প্রচুর সহজ লাগলেও সামাজিক মিডিয়া প্রচার বেশ জটিল ১টি ব্যাপার। আপনাকে সামাজিক মিডিয়ার প্রয়োগ সম্পর্কে পূরণ জ্ঞান রাখবার পাশাপাশি নির্ভুল লোকের কাছে পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন পৌঁছে দেওয়ার জন্য হয়। কাজটি অনেকটাই জটিল কেননা অধুনা কোটি কোটি ব্যক্তি রোজ সোশ্যাল মিডিয়া প্রয়োগ করছে।

এতো মানুষের ভিতরে থেকে সঠিক মানুষের নিকট পণ্যের বিজ্ঞাপন পৌঁছাতে হলে আপনাকে সাম্প্রতিক ট্রেন্ড, মানুষের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার সম্মন্ধে অনেক ভালো জ্ঞান রাখবার দরকার হয়। অধুনা নানারকম ইন্সটিটিউট তাদের পণ্যের অ্যাডসের জন্য সোশাল মিডিয়াকে বেছে নিচ্ছে কেননা মানুষের কাছে তাদের ব্র্যান্ডকে পরিচিত করার জন্য সামাজিক মিডিয়াই এখন হয়ে উঠেছে সবথেকে সোজা ও দ্রুততম মাধ্যমে। ফলে দিনে দিনে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের ডিমান্ড বেড়েই চলেছে।

সোশ্যাল মিডিয়া প্রচার বলতে কী বোঝায়?

সোজা কথায় বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে পণ্য বা সেবার প্রচারনাই সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং। তবে যেনতেন ভাবে এই প্রচারনা চালালে সফলতা পাবার সম্ভাবনা খুবই কম। একারণেই চাই হয় ১টি নিয়মমাফিক প্রচারনার। অর্থাৎ আপনাকে মানুষের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের হ্যাবিট বুঝে এরপর এই প্রচারনা চালাতে হয়। আর এটা যখন আপনি প্রফেশনালভাবে করবেন তখন আপনি সামাজিক মিডিয়া মার্কেটার হিসেবে পরিচয় লাভ করবেন। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংকে অনেকে মডার্ন প্রচার বা ই-মার্কেটিংও বলে থাকেন। 

বর্তমানে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম মার্কেটিং এর জন্য নানারকম সরঞ্জাম দিয়ে থাকে যার মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটাররা সহজেই তাদের সফলতা ও কীভাবে তাদের প্রচার পরিচালনা করতে হবে সে সম্পর্কে বুঝতে পারেন। বিভিন্ন পন্থা ও বিশ্লেষণের সাহায্যে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার ঠিক রাস্তায় তাদের প্রচারনা পরিচালনা করার জন্য পারেন এইসব টুল প্রয়োগ করে।

প্রায় সব সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম তাদের ইউজারদের বিভিন্ন ইনফরমেশন নিয়ে থাকে। উদাহরণসরূপ ব্যবহারকারী কোথায় থাকেন বা তার লাইকের জিনিস কী, কী কাজ করেন প্রভৃতি নানারকম তথ্য এসব সোশ্যাল মিডিয়া সংরক্ষন করে। আর এসকল তথ্য ব্যবহার করেই সোশাল মিডিয়া মার্কেটারদের সোশ্যাল প্লাটফর্মগুলো সহজেই অডিয়েন্স লক্ষ্য করতে দেওয়ার জন্য পারে। ফলে নোটিশ যায় ব্যবহারকারী যা পছন্দ করেন বা তিনি যেখানে থাকেন তার সঙ্গে মিলিয়েই নানারকম পণ্যের বিজ্ঞাপন তার সম্মুখে আসে। এতে করে সহজেই নির্ভুল ক্রেতার কাছে পৌঁছাতে পারে ব্র্যান্ডগুলো।

তবে সফলতা পেতে হলে সামাজিক মিডিয়া মার্কেটারদের অভিজ্ঞতা প্রচুর গুরুত্বপূর্ণ। একমাত্র লক্ষ্য অডিয়েন্স দিয়েই সহজে সফল হওয়া হায় না। তাই এইরকম পর্যাপ্ত বিশ্লেষণের চাই হয়। আর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার এসব ব্যাপারেই সক্ষমতা অর্জন করেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের যেসব সক্ষমতা অর্জন করতে হয়

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের নানা ধরণের দক্ষতা অর্জন করার প্রয়োজন হয় সফলতা পেতে। এই কাজের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা ভীষণ জরুরি একটি জিনিস। আপনি যত বিচক্ষণ হবেন তত অধিক বুঝতে ও জানতে পারবেন। কাজেই অভিজ্ঞতা অর্জনের সাথে সঙ্গে নিচের দক্ষতাগুলোর উন্নতি করা দরকার।

সৃজনশীল দৃষ্টিভঙ্গি

সৃজনশীল দৃষ্টিভঙ্গি থাকা একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারের জন্য বড় একটি দক্ষতা। কেননা এতে করে আপনি সহজেই বুঝে যেতে পারবেন কিরকম ডিজাইন বা অ্যাড সহজে মানুষের নজর কারে। আপনি যে ফটো বা ভিডিও দিয়ে প্রচারনা চালাবেন তা আকর্ষণীয় না হলে ঠিক ক্রেতার নিকট সেটি পৌঁছালেও তা  বা সেই সার্ভিস গ্রহণ করা থেকে উনি বিরত থাকতে পারেন। এজন্যই কিরকম কন্টেন্ট দিয়ে আপনি প্রচারনা করবেন সেটা ঠিকভাবে নির্ধারণ করা বেশ জরুরি। এছাড়া ডিজাইন করার নৈপুন্যতা থাকলে ক্যানভা, জিফি, অ্যাডোবি স্যুইট ব্যবহার করে সহজেই বিভিন্ন চক্ষু ধাঁধানো বিজ্ঞাপন প্রস্তুত করা যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করার জন্য। কাজেই সৃজনশীলতা বেশ জ্যেষ্ঠ ১টি গুন সোশাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে

ভালো ব্যবহারকারী সেবার দক্ষতা

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের সরাসরি ব্যক্তি বা ক্রেতার সাথে প্রত্যহ যোগাযোগ করতে হয়। আর একারণেই ইউজার বা ক্রেতাদের ঠিকভাবে পরিসেবা দিতে সুন্দর যোগাযোগ নৈপুন্যতা থাকা প্রয়োজন। গ্রাহকদের সার্ভিস দেয়ার ক্ষেত্রে চমৎকার ব্যবহার ও সঠিকভাবে বোঝানোর বিকল্প নেই। কাজেই এসব ক্ষেত্রে সক্ষমতা অর্জন করা জরুরি।

ট্রেন্ড সম্মন্ধে জানা

একদম স্মার্ট বিভিন্ন ট্রেন্ড সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় ক্ষেত্রে জরুরি। কাজেই আধুনিক সকল ট্রেন্ড সম্মন্ধে সবার আগে জানা তার সাথে সেই অনুযায়ী বিভিন্ন অ্যাডভারটাইজমেন্ট বা পোস্ট লিখলে সহজেই সফলতা পাওয়া যায়। কাজেই সর্বশেষ সকল ট্রেন্ড বা ঘটনা সম্পর্কে প্রথমে থেকেই জানা থাকা প্রয়োজন সোশাল মিডিয়া মার্কেটারদের।

এসইও সম্মন্ধে জ্ঞান

এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিংয়ের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ। কোন কীওয়ার্ড বা শব্দগুলো সার্চ ইঞ্জিনে বহু দেখাবে বা আপনার পোস্টকে উপরের দিকে নিয়ে যাবে সেটি বুঝতে হলে এসইও সম্পর্কেও জানা থাকা দরকারি।

নাম্বার সম্পর্কে বেশ ভালো জ্ঞান

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ে নাম্বার অতিশয় গুরুত্বপূর্ণ। অর্থাৎ আপনি কতো মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারছেন বা কতো ব্যক্তি আপনার পোস্ট দেখছে এসব বিষয়ে বিভিন্ন অ্যানালিটিক টুল আপনাকে বিভিন্ন ইনফরমেশন দেবে। এসব তথ্য ও নাম্বার দেখেই আপনাকে পরের প্রস্তুতি সাজাতে হবে। কাজেই সোশাল মিডিয়া মার্কেটার হিসেবে নাম্বার ও অ্যানালিটিকস নিয়ে অগাধ জ্ঞান থাকা আবশ্যক।

সোশ্যাল মিডিয়া প্রচার কীভাবে শিখব?

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখতে অনলাইনেই আপনি বেশ ভালো কিছু কোর্স, ইবুক, ব্লগ ইত্যাদি বিনামূল্যেই পেতে পারেন। এসব জায়গা হতে আস্তে ধীরে আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করার জন্য পারবেন।

অনলাইনে নানারকম ব্লগ থেকে সামাজিক মিডিয়া প্রচার সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করার জন্য পারবেন সহজেই। এসব ব্লগে নিত্য এ সংক্রান্ত পোস্ট করা হয়ে থাকে। এসব ব্লগ হতে সামাজিক মিডিয়া সম্মন্ধে নানারকম ডাটা, লেটেস্ট ট্রেন্ড ইত্যাদি নিয়ে জানতে পারবেন।

এছাড়া ইন্টারনেটে বা অফলাইনে এই জনিত বিভিন্ন ইবুক সংগ্রহ করতে পারেন। এইখানে আপনি সোশাল মিডিয়া মার্কেটিং নিয়ে এইরকম অতল তথ্য ও অনুসন্ধান পাবেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের নানারকম কোর্স আপনি ইন্টারনেটে পেয়ে যাবেন। ইউটিউব, ইউডেমি, কোর্সেরা এর মতো সাইটগুলোতে পর্যাপ্ত কোর্স রয়েছে।

অর্থাৎ সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার জন্য চাইলে সহজেই ঘরে বসে সক্ষমতা অর্জন করে পুরোপুরি দক্ষ হওয়া সম্ভব। ফ্রিল্যান্সিং বাজারে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের প্রচুর ডিমান্ড রয়েছে যা দিনে দিনে আরও বাড়ছে। কাজেই এটি ফ্রিল্যান্সিং আয়ের জন্য অতিশয় চমৎকার ১টি উপায় হতে পারে।

কিছু কম পুঁজির অনলাইন বিজনেস আইডিয়া